ঢাকা রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯

ডাচদের স্তব্ধ করে কোয়ার্টারে চেক প্রজাতন্ত্র

স্পোর্টস ডেস্ক: এম.এ রনী | প্রকাশিত: ২৭ জুন ২০২১ ২০:৪৬; আপডেট: ২৮ জুন ২০২১ ০৮:১৬

ম্যাচের পরিষ্কার ফেভারিট, তর্কসাপেক্ষে টুর্নামেন্টেরও। ইউরো ২০২০ এর শেষ ষোলয় চেক প্রজাতন্ত্রের বিপক্ষে নেদারল্যান্ডস খেলছিলও তেমন ঢঙেই। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে অভিজ্ঞ ম্যাতায়াস ডি লিখটের মারাত্মক এক ভুলেই সর্বনাশ হলো ডাচদের। চেকদের কাছে ২-০ গোলে হেরে বিদায় নিতে হয়েছে ইউরো থেকেই!

সাবেক কোচ রোনাল্ড কোম্যান বার্সেলোনায় চলে যাওয়ার পর থেকে ইউরোর আগ পর্যন্ত কিছুটা নড়বড়েই ছিল দলটা। ছিল তুরস্কের কাছে চার গোল হজমের অভিজ্ঞতাও। সেই দলটাই ইউরোয় এসে নিজেদের খুঁজে পেয়েছিল কোচ ফ্র্যাঙ্ক ডি বোয়েরের ৩-৪-১-২ ছকে। তিন জয় নিয়ে ইউরোর নকআউটে এসেছিল যে তিনটে দল তার একটাই ছিল ডাচরা।

সেই দলকে আপনি ফেভারিটদের কাতারে না ফেললে কাকে ফেলবেন? গ্রুপপর্বে যে প্রচ্ছন্ন ঘোষণাটা ছিল ডাচদের, তার একটা ছাপ ছিল প্রথমার্ধে দলের খেলাতেও।

টোটাল ফুটবল না খেললেও ডাচরা এখনো বলের দখল ধরে খেলতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। সে ধারা অব্যহত ছিল এদিনও। প্রথমার্ধে বলের দখল নিয়ে মাঝমাঠের আধিপত্য ছিল ইয়োহান ক্রুইফের উত্তরসূরিদের কাছে। তবে প্রতিপক্ষ রক্ষণকে তেমন সমস্যায় অবশ্য ফেলতে পারেনি নেদারল্যান্ডস। উল্টো সুযোগ একটা গিয়েছিল চেকদের পক্ষে। সে যাত্রায় ডি লিখট বাঁচিয়ে দিয়েছিলেন দলকে। কে জানত, এই ডি লিখটই দ্বিতীয়ার্ধে ডোবাবেন দলকে!

বিরতির কিছু পরে দারুণ এক সুযোগ যেন পায়ে এসে লুটিয়ে পড়েছিল ডাচদের। ৫২ মিনিটে ডনিল মালেন দারুণ নৈপুণ্যে ছিটকে দেন দুই চেক ডিফেন্ডারকে, সামনে ছিলেন কেবল গোলরক্ষক থমাস ভাচলিক। কি ভেবে তাকেও কাটিয়ে করতে চেয়েছিলেন গোল, কিন্তু সেভিয়া গোলরক্ষকের দারুণ ক্ষিপ্রতায় সে সুযোগ হারান মালেন, আক্ষেপে পোড়ে ডাচরা।

সেই গোলটা হয়ে গেলে হয়তো পাল্টা সুযোগটাই পেত না চেকরা, নিজের সঙ্গে দলকেও হয়তো বিপদে ফেলতেন না ডি লিখট। মালেন সে সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি, প্রতি আক্রমণে ডাচ বিপদসীমায় উঠে আসে চেকরা। তখনই ডি লিখট করে বসেন শিশুসুলভ এক ভুল। প্যাট্রিক শিককে রুখতে গিয়ে হাত দিয়ে বল থামিয়ে দেন তিনি। প্রথমে রেফারির চোখ এড়িয়ে হলুদ কার্ড দেখলেও ভিএআর দেখে এসে লাল কার্ড দেখান তিনি। অভিজ্ঞ ডিফেন্ডারকে হারিয়ে দশ জনের দলে পরিণত হয় ডাচরা।

৬৮ মিনিটে সে সুযোগটাই নেয় চেকরা। ছোট কর্নার থেকে বল যায় দূরের পোস্টে, তাতে ডাচ রক্ষণ হয় ছত্রখান, ফিরতি ক্রসে টমাস হোলসের দারুণ এক হেডার নেদারল্যান্ডসের তিন ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে আছড়ে পড়ে জালে। 

দশ জনের দল, প্রতিপক্ষ এগিয়ে এক গোলে, শোধ করার জন্য ছিল ২২ মিনিট। ডাচদের ম্যাচটা কার্যত শেষ সেখানেই। ৭৮ মিনিটে গোল করে সেটা কেবল নিশ্চিতই করেছেন প্যাট্রিক শিক। এরপর ডাচরা একের পর এক চেষ্টা করে গেছে বটে, কিন্তু ততক্ষণে যে বেশি দেরি হয়ে গেছে! নেদারল্যান্ডসের আক্রমণ শেষতক রুখে ২-০ গোলের জয় নিয়ে, শেষ আট নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়ে চেকরা। 

আর ডাচদের নকআউট আক্ষেপটা দীর্ঘতর হয় আরেকটু। চলতি দশকে যে ইউরো নকআউটে দলটির জয় নেই একটিও।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top