ঢাকা রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপের মিডিয়া নেটওয়ার্কিং অনুষ্ঠিত

ক্রীড়া ডেস্ক | প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট ২০২২ ২১:০৫; আপডেট: ২৫ আগস্ট ২০২২ ২১:৩১

 

মুজিব বর্ষ ও বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীকে উৎসর্গ করে ‘মুজিব বর্ষ ও বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীকে উৎসর্গ করে বঙ্গবন্ধুর সোনার দেশ, তারুণ্যের বাংলাদেশ” কে প্রতিপাদ্য হিসেবে ধারণ করে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে, পোলার আইসক্রীমের পৃষ্ঠপোষকতায়, স্পেলবাউন্ড লিও বার্নেট-এর পরিচালনায় এবং সারাদেশের ১২৫ টি পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৭০০০ শিক্ষার্থীর সম্মিলিত অংশগ্রহণে আগামী ৯ই সেপ্টেম্বর হতে শুরু যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপের এর ৩য় আসরের প্রতিযোগিতা।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও ‘বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপ' এর সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল, এমপি। অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাহ উদ্দিন।

বিগত আসরগুলোর ধারাবাহিকতায় সকলের সক্রিয় অংশগ্রহণ ও সহযোগিতার মাধ্যমে এবারের আসরকেও আরো সাফল্যমণ্ডিত করার প্রত্যাশা নিয়ে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল, এমপি বলেন, “আপনারাই হতে পারেন তরুণদের অনুপ্রেরণার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। আশা করছি আপনাদের সহযোগিতার মাধ্যমে আমরা তরুণদের উদ্বুদ্ধ করতে পারবো সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে, এটাই আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যয়।

আর এই প্রত্যয়কে বাস্তব রূপ দিতে আমাদের সকলের সমন্বিত চেষ্টায় গড়ে তুলতে হবে সোনার বাংলার সোনার মানুষ।”

এছাড়া তরুণসমাজকে খেলাধুলার পাশাপাশি অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ইত্যাদি কর্মকান্ডের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “সমাজে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদকাশক্তির মত বিভিন্ন সমস্যা থেকে পরিত্রাণের অন্যতম উপায় হচ্ছে ক্রীড়া।

এই সকল সমস্যা থেকে আমাদের তরুণ সমাজকে ফিরিয়ে আনার জন্য ক্রীড়ার বিকল্প নেই। তাছাড়া ক্রীড়াচর্চার মাধ্যমেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সৃষ্টিশীলতা ও প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে সাহায্য করবে।”

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী খেলোয়াড়দের নিয়ে একটি ডিজিট ইন্টিগ্রেটেড ওয়েবসাইট ও তৃতীয় আসরের ফিক্সচার উন্মুক্ত করা হয়।

এই ডিজিটা ইন্টিগ্রেটেড ওয়েবসাইট খেলোয়াড় বাছাই করতে সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনগুলোকে সাহায্য করবে বলে আশা করছে পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান স্পেলবাউন্ড লিও বার্নেট। 

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এর সচিব জনাব মেজবাহ উদ্দিন বলেন, “আমি অত্যন্ত গর্বিত যে আমাদের দেশে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপ এর মত প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। এ ধরনের প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে তরুণরা নিজেদেরকে বিকশিত করার সুযোগ পাবে এবং জাতির পিতার স্বপ্নের দেশ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।”

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিকেএসপির পরিচালক (প্রশিক্ষণ) কর্ণেল মিজানুর রহমান, দেশের অধিকাংশ ক্রীড়া সাংবাদিকসহ আরো অনেকে।

উল্লেখ্য যে, স্পেলবাউন্ড লিও বার্নেট-এর প্রস্তাবনার আলোকে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ও আয়োজনে ২০১৯ সালে প্রথমবারের মত সারাদেশের ৬৫টি পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মিলিত অংশগ্রহণে মাসব্যপী দশটি ইভেন্টে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সমাপনী ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অত্যন্ত সফলভাবে সম্পন্ন হয়।

প্রথম আসরের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মশতবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ২০২০ সালের মার্চে সারাদেশের ১০৪টি পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মিলিত অংশগ্রহণে ১২টি ইভেন্টে প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় আসরটি শুরু হয়।

তবে বিশ্বব্যপী কোভিড মহামারীর কারণে ২য় আসরকে প্রথমে সাময়িক স্থগিত ঘোষণা করা হয় এবং পরবর্তীতে আয়োজক কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২য় আসরটিকে বাতিল ঘোষণা করা হয়।

 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top