ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ৭ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

রাজধানীর বর্ণমালা স্কুলে বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ স্বরণে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-২০২২

এম. এ রনী | প্রকাশিত: ১ জুন ২০২২ ১৬:৪৯; আপডেট: ৩ জুন ২০২২ ০০:৫৬

 
 
রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, দনিয়া, শনিরআখড়াতে অবস্থীত বর্ণমালা আদর্শ স্কুল ও কলেজ যেন ব্যস্ততম শহরের মধ্যে সবুজে ঘেরা মনোরোম পরিবেশে একটি শান্তির নীর। স্কুল প্রাঙ্গনটির চারিপাশে নানা রকম বৃক্ষে ভরা একটি সবুজ পরিবেশ। ছাত্রছাত্রীদের মাঝে যা প্রশান্তির ছোয়া বয়ে যায়। রাজধানীর অনেক স্কুলে যেখানে ঠিকমতো হাঁটা চলার জায়গার ‍খুবই অবভা সেখানে বর্ণমালা স্কুল যেন ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য এক অফুরন্ত প্রাণের উচ্ছ্বাস।
 
বর্ণমালা স্কুল সবসময় সরকারী নির্দেশে সকল প্রকার জাতীয় প্রোগ্রামগুলো ঘটা করে আয়োজন করে থাকে। সামাজিক, রাষ্ট্রিয়, ধর্মীয় মূল্যবোধ বৃদ্ধি ছাড়াও ছাত্র/ছাত্রীদের মধ্যে পাঠ্যপুস্তকের বাহিরে থেকে অনেক সুন্দর আয়োজন করে থাকে। তারই পথ ধরে, বর্ণমালা স্কুল এবার আয়োজন করেছে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রয়াত স্বামী বাংলাদেশের অন্যতম বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ স্বরণে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-২০২২। এই মেলাটি ৩০ মে-২০২২ থেকে ২ জুন, ২০২২ পর্যন্ত চলমান থাকবে।
 
 
 
বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেণীর ছাত্র/ছাত্রীদের নিয়ে প্রায় ১১০টি স্টল নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে। এই মেলাটিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক ছাড়া সুষমও খাদ্য, পরিবেশ, সামাজিক বিভিন্ন উদ্ভাবনা নিয়ে ছাত্র/ছাত্রীরা তাদের নিজ হাতে তৈরীকৃত বিভিন্ন নতুন চিন্তাশক্তি পরিদর্শন করেন।
 
বর্ণমালা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ আয়োজিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-২০২২ উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার ভবিষ্যৎ বিজ্ঞানী শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন স্টল ও প্রযুক্তির উদ্ভাবনী চিন্তাশক্তি পরিদর্শন করছেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের সভাপতি (ঢাকা মহানগর দক্ষিণ) ও বর্ণমালা আদর্শ উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ্ব আব্দুস সালাম বাবু ও অধ্যক্ষ আলহাজ্ব ভূইয়া আব্দুর রহমান ।
 
 
এই বিষয়ে স্কুলটি গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম বাবু বলেন, আমরা শহরের জীবনে প্রায় দমবন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা হয়ে গেছে। তাই আমরা চেষ্টা করছি ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে সুবজের মধ্যে রেখে বিভিন্ন নতুন চিন্তাশক্তি আবির্ভাব ঘটানোর। 
 
আমি মনে করি যত বেশী গবেষণা হবে দেশে তত বেশী মেধাশক্তি বৃদ্ধি পাবে। কারণ একটি দেশ এগিয়ে যাওয়ার গবেষনার কোন বিকল্প নেই। তাছাড়া জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ার জন্য আমাদের আরও বেশী এরকম আয়োজন করা উচিত। আমি সকল শিক্ষার্থীর উত্তরোত্তর উৎকর্ষ ও সাফল্য কামনা করছি। 
 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top