ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯

অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত আইনপ্রণেতারা

ডেস্ক রিপোর্ট | প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০২১ ১০:৪৮; আপডেট: ১১ আগস্ট ২০২২ ০৮:১৭

 

সিআরপিএইচ কমিটি গঠিত হয়েছে মূলত ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির (এনএলডি) আইনপ্রণেতাদের নিয়ে। গত বছর অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে জয় লাভ করলেও গত ১ ফেব্রুয়ারির সেনা অভ্যুত্থানের কারণে ক্ষমতায় বসতে পারেননি তারা।

 

নৃতাত্ত্বিক সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর (ইএওএস) সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করবে সিআরপিএইচ। এতে অন্তর্ভুক্ত থাকবে নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠীগুলোর সদস্যরাও। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কমিটির এক সদস্য জানিয়েছেন, রাজনৈতিক রোডম্যাপ অনুসরণ করে এই মন্ত্রিসভা গঠন করা হবে।

 

গত ৩১ মার্চ সিআরপিএইচ ফেডারেল ডেমোক্র্যাসি চার্টার ঘোষণা করে। ওই দিনই তাদের পক্ষ থেকে সেনা সরকারের প্রণয়ন করা ২০০৮ সালের সংবিধান বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। ওই চার্টার অনুসরণ করেই অন্তর্বর্তী মন্ত্রিসভা গঠন করা হবে বলে জানা যাচ্ছে।

দুই অংশের ওই চার্টারে ‘অন্তর্বর্তী জাতীয় ঐক্যের সরকারের’ রুপরেখা ঘোষণা করা হয়। এই সরকারের অন্যতম দায়িত্ব হবে সেনা শাসকদের শাসন চালানোর প্রক্রিয়াগুলোকে দুর্বল করে দেওয়া, অসহযোগ আন্দোলনে সমর্থন এবং জাতীয় প্রতিরক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া।

চার্টারটির প্রথম অংশে বর্ণিত রাজনৈতিক রোডম্যাপে বলা হয়েছে, জাতীয় ঐক্যের সরকার গঠনের পর আইনসভা এবং বিচারিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হবে। নতুন একটি খসড়া সংবিধান প্রস্তুত করতে একটি জাতীয় কনভেনশন প্রতিষ্ঠার কথাও বলা হয়েছে এতে। গণভোটের মাধ্যমে সেই খসড়া সংবিধান অনুমোদন করা হবে।

ওই চার্টারে বলা হয়েছে, জাতীয় ঐক্যের সরকার পরিচালিত হবে সংসদীয় ব্যবস্থা অনুসরণ করে। এতে প্রধানমন্ত্রী, প্রেসিডেন্ট, রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা এবং দুই জন ভাইস প্রেসিডেন্ট থাকবেন।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top