ঢাকা বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮

দেড় শতাধিক মন্ত্রী-এমপি করোনায় কাবু : মারা গেছেন চারজন

জাহাঙ্গীর কিরণ | প্রকাশিত: ৯ এপ্রিল ২০২১ ১২:০৩; আপডেট: ২৬ জানুয়ারী ২০২২ ০৪:৩৪

জীবন হরণকারী মহামারী করোনা ভাইরাসে কাবু হয়ে পড়ছেন সরকারের মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রীসহ জাতীয় সংসদের সদস্যরা। তথ্যানুযায়ী, এ পর্যন্ত দেড় শতাধিক মন্ত্রী-এমপি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরুর পর এই ক’দিনে আক্রান্ত হয়েছেন কেজন প্রতিমন্ত্রীসহ অন্তত ১৮ জন এমপি। আক্রান্তদের অধিকাংশের সুস্থতা মিললেও প্রাণ সংহার হয়েছে চারজন এমপির।

অনেকেই ক্রিটিক্যাল অবস্থায় মৃত্যুর সাথে লড়াই করে যাচ্ছেন হাসপাতালের আইসিইউতে। বাকিরা নিজ বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। করোনায় জীবন দেয়া চার এমপির মধ্যে রয়েছেন- ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ, নওগাঁ-৬ আসনের ইসরাফিল আলম, সিরাজগঞ্জ-১ আসনের মোহাম্মদ নাসিম ও সিলেট-৩ আসনের মাহমুদ উস সামাদ কায়েস।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনার মতো মহামারীতে সাধারণ মানুষ যখন দিশেহারা তখন জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে ঘরে বসে থাকা যাচ্ছে না। এমপি-মন্ত্রীরা সবাই নিজ নিজ এলাকার মানুষের পাশে সময় দিচ্ছেন। তাদের খোঁজ-খবর নেয়ার পাশাপাশি সরকার, দল এবং নিজ নিজ অবস্থান থেকে সাহায্য-সহায়তা করে আসছেন। মূলত জনগণের পাশে দাঁড়াতে গিয়েই তাদের বেশিসংখ্যক আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানান তারা।

সূত্রমতে, এমপিদের মধ্যে প্রথম কোভিড-১৯ শনাক্ত হয় নওগাঁ-২ আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকারের। দেশে করোনা সংক্রমণের ৫২ দিনের মাথায় ৩০ এপ্রিল তার শরীরে ভাইরাস ধরা পড়ে। আর মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়কমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং প্রথম করোনা আক্রান্ত হন। এরপর দিন যতই গড়িয়েছে ততোই বেড়েছে মন্ত্রী-এমপিদের মাঝে করোনা আক্রান্তের হার। করোনার প্রথম ঢেউয়েই আক্রান্ত হন প্রায় শতাধিক এমপি-মন্ত্রী। দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ার পর আক্রান্তের হার বাড়ে লাগামহীনভাবে।

গত ১৫ মার্চ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও কুমিল্লা-৫ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল মতিন খসরু সংসদ সচিবালয়ে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। ১৬ মার্চ সকালে তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ওইদিনই তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়। ২৮ মার্চ রাত ১২টার দিকে আবদুল মতিন খসরুকে আইসিইউতে নেয়া হয়।

৩ এপ্রিল তাকে সিএমএইচের আইসিইউ থেকে সাধারণ কেবিনে স্থানান্তর করা হলেও ৬ এপ্রিল রাতে পুনরায় আইসিইউতে নেয়া হয়। ২০ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হন সুনামগঞ্জ-৪ আসনের এমপি বিরোধীদলীয় হুইপ পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ ও তার স্ত্রী মাসকুরা হোসাইন দীনা। ২৩ মার্চ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী মোহাম্মদ সেলিম। তিনি রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

২৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হন হবিগঞ্জ-২ আসনের এমপি মো. আবদুল মজিদ খান। ৩০ মার্চ আক্রান্ত হন এমপি শাহীন আকতার। ৩০ মার্চ গাজীপুর-৪ আসনের এমপি সিমিন হোসেন রিমি ও তার দুই ছেলে সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত হন। তাদের রাজধানীর ইউনাইডেট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ৩১ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পান পাবনা-২ আসনের এমপি আহমেদ ফিরোজ কবির।

কক্সবাজারের চার এমপির তিনজনই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তারা হলেন- কক্সবাজার-১ আসনের মো. জাফর আলম, কক্সবাজার-২ আসনের আশেক উল্লাহ রফিক ও কক্সবাজার-৪ আসনের শাহীন আকতার। ২ এপ্রিল করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এমপি আশেক উল্লাহ রফিক। গত ৩ এপ্রিল আক্রান্ত হয়েছেন হবিগঞ্জ-১ আসনের এমপি গাজী মোহাম্মদ শাহনওয়াজ মিলাদ গাজী।

একইদিনে করোনা আক্রান্ত হন সংরক্ষিত (নারী) আসনের এমপি খোদেজা নাসরিন। রাজধানীর পান্থপথে হেলথ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন সংরক্ষিত (নারী) আসনের আরেক এমপি শিরিন আহমেদও। সংসদ ভবন এলাকার বুথে পরীক্ষা করিয়ে গত ৪ এপ্রিল করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর জানেন ফেনী-২ আসনের এমপি নিজাম উদ্দিন হাজারী। ওইদিনই দ্বিতীয় দফায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন সিরাজগঞ্জ-১ আসনের এমপি তানভীর শাকিল জয় ও গাজীপুর-৫ আসনের এমপি মেহের আফরোজ চুমকি।

সর্বশেষ গত ৬ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন নোয়াখালী-৩ আসনের এমপি মো. মামুনুর রশীদ কিরণ ও তার বড় ছেলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি জিহান আল রশীদ। আক্রান্ত হন সিরাজগঞ্জ-৪ আসনের এমপি তানভীর ইমাম। ওইদিন নেত্রকোনা-৩ আসনের এমপি অসীম কুমার উকিলও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এছাড়া ঢাকা-২০ আসনের এমপি বেনজীর আহমেদ, রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর আগে গত রবিবার দ্বিতীয়বারের মতো করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন টাঙ্গাইল-২ আসনের এমপি ভানভীর হাসান ছোট মনির। গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর তিনি প্রথম দফায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top