ঢাকা রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অগ্নিঝরা জয় বাংলাদেশের

ক্রীড়া ডেস্ক | প্রকাশিত: ৫ জানুয়ারী ২০২২ ০৭:০০; আপডেট: ৫ জানুয়ারী ২০২২ ০৭:২৯

 

জয়ের জন্য মাত্র ৪০রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমেই শুরুতেই সাদমানের উইকেট হারিয়ে যেন পুরোনো বাংলাদেশের তীরে এসে তরী ডুবানোর সঙ্কা তৈরী হয় ক্রিকেট প্রেমীদের হৃদয়ের মাঝে। কিন্তু সকল ভয়কে খুব সহজেই জয় করে মুমিনুল বাহিনী। সাদমান এবং জয়ের খুব কাছে এসে শান্তর উইকেট হারিয়েও মুমিনুল আর মুশফিক জয় দিয়ে ম্যাচটি শেষ করে। ৮উইকেটের বিশাল জয় দিয়ে বছরটি শুরু করলো বাংলাদেশ। সেই সাথে উড়তে থাকা নিউজিল্যান্ডকে এক ধাক্কায় মাটিতে নামিয়ে দিল বাংলাদেশ।

 

 

সেই সাথে দেশের মাঠে টানা ১৭ টেস্টের অপরাজেয় যাত্রা থামল নিউ জিল্যান্ডের এই হারে। সবশেষ তিন সিরিজে তারা হোয়াইটওয়াশ করেছিল পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ভারতকে। উপমহাদেশের কোনো দলের সবশেষ জয় ছিল ১১ বছর আগে, পাকিস্তানের। সেই দলকেই এবার বড় ব্যবধানে হারাল বাংলাদেশ।

 

অগ্নিঝরা জয় দিয়ে নতুন বছরটি শুরু করলো বাংলাদেশে। এ এক নতুন বাংলাদেশকে দেখলো বিশ্ব। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রতিটি বিভাগেই পিছিয়ে ছিল নিউজিল্যান্ড। বোলিং-ব্যাটিং দুই বিভাগেই অসাধরণ নৈপুন্য দেখিয়েছে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এ যাবৎকালে কোন এশিয়ার দলই এতোটা ভালো ফলাফল করতে পারেনি। এ এক অবিস্মরণীয় জয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে কোন ভাবেই দাড়াতেই পারেনি নিউজিল্যান্ড।

 

 

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের গত চক্রে ৭ ম্যাচের ৬টিতেই হেরেছিল বাংলাদেশ, বাকিটি হয়েছিল ড্র। এবারও শুরুটা পাকিস্তানের বিপক্ষে হয়েছিল যাচ্ছেতাই। অবশেষে অভিজাত সংস্করণের আসরে প্রথম জয়টি ধরা দিল।

নিউ জিল্যান্ডে প্রথম জয়ের অপেক্ষাটা ছিল আরও দীর্ঘদিনের। কিউইদের বিপক্ষে তাদের মাঠে তিন সংস্করণ মিলিয়ে ৩৩ ম্যাচ খেলে অবশেষে দেথা মিলল প্রথম জয়ের।

 

পঞ্চম দিনে নিউজিল্যান্ডকে অল-আউট করার জন্য প্রয়োজন ছিল ৫ উইকেট, বাংলাদেশ সময় নিল স্রেফ ১০ ওভারের একটু বেশি। ইবাদত হোসেন চৌধুরি ও তাসকিন আহমেদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে নিউ জিল্যান্ড এগোতে পারল না বেশি দূর। বাংলাদেশ তৈরি করে নিল স্মরণীয় এক জয়ের মঞ্চ।

মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টের শেষ দিন সকালে নিউ জিল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংসে অলআউট ১৬৯ রানে। টেস্ট জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন শেষ ইনিংসে স্রেফ ৪০ রান। এবারের আগে নিউ জিল্যান্ডে তাদের বিপক্ষে তিন সংস্করণ মিলিয়ে ৩২ ম্যাচ খেলে সবকটিই হেরেছে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের প্রথম জয়টি আসলো নতুন বছরের প্রথমেই।

৫ উইকেটে ১৪৭ রান নিয়ে দিন শুরু করা নিউজিল্যান্ড যোগ করতে পারে আর মাত্র ২২ রান।

আগের দিন ৪ উইকেট নেওয়া ইবাদত শেষ দিনেও নায়ক। ৪৬ রানে তার শিকার ৬ উইকেট। দেশের বাইরে টেস্টে বাংলাদেশের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড এটি। তার হাত ধরে প্রায় ৯ বছর ও ৪৭ ম্যাচ পর টেস্টে ৫ উইকেট পেলেন বাংলাদেশের কোনো পেসার।

 

 

এরপর দুটি উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ, শেষটি মেহেদী হাসান মিরাজ। ফিল্ডিং শেষ দিনও ছিল দুর্দান্ত। দারুণ দুটি ক্যাচ নেন শরিফুল ইসলাম ও বদলি ফিল্ডার তাইজুল ইসলাম।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top