ঢাকা বুধবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে দাবাতে বাংলাদেশ শক্তিশালী ও সফল দেশ হিসেবে আবির্ভাব করবে: ডঃ বেনজির আহম্মেদ

শেখ কামাল ক্রীড়া ও সংস্কৃতিতে মৃত্যুঞ্জয়ী হয়ে আছেন: যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

এম.এ রনী | প্রকাশিত: ৩১ আগস্ট ২০২১ ১২:০৩; আপডেট: ৩১ আগস্ট ২০২১ ১৬:৩১

 

শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষেষ সাইফ পাওয়ারটেক লিঃ এর আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতায় এবং বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের আয়োজনে শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল আমন্ত্রনমূলক আন্তর্জাতিক অনলাইন দাবা প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান রাজধানীর হোটেল ‘লা মেরিডিয়ানের স্কাই বল রুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল (এমপি) প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বাংলাদেশেী বিজয়ীদের মধ্যে পুরুস্কার বিরতণী করেন এবং বিদেশী পুরস্কার প্রাপ্তি খেলোয়ারদের ভার্চুয়ালি পুরস্কার প্রদান করেন। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পুলিশের মহা-পরিদর্শক এবং বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশন ও সাউথ এশিয়ান দাবা কাউন্সিরের সভাপতি ডঃ বেনজির আহম্মেদ ও সাইফ পাওয়ারটেক লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সহ-সভাপতি তরফদার মোঃ রুহুল আমিন। 

পুরুস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শাহবুদ্দিন শামিম ও এশিয়ান দাবা ফেডারেশনের নির্বাহী পরিচালক আগুন্দ কাষ্ট্রো।  এ সময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রানালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোশারফ হোসেন মোল্লা, দাবা ফেডারেশনের সহ-সভাপতি কে. এম শহিদুল্লাহ, যুগ্ম-সম্পাদক ও বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি ডঃ সোহেব রিয়াজ আলম এবং যুগ্ম-সম্পাদক মাসুদুর রহমান মল্লিক দিপু।

 

 

প্রতিযোগিতায় চিনের গ্র্যান্ড মাস্টার লি ডি অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন ৯ খেলায় ৮ পয়েন্ট নিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে শিরোপা জয় করেন। সাড়ে সাত পয়েন্ট নিয়ে ভারতের গ্র্যান্ড মাস্টার অভিমান্যু পৌরনিক রানার-আপ হয়েছেন। সাড়ে ছয় পয়েন্ট করে অর্জন করেন ৫ জন খেলোয়াড়, টাইব্রেকিং পদ্ধতিতে ভারতের গ্র্যান্ড মাস্টার কার্তিক ভেঙ্কাটারামান তৃতীয়, ইরানের গ্র্যান্ড মাস্টার আমিন তাবাতাবেই চতুর্থ, বেলেরুশের গ্র্যান্ড মাস্টার ভাদিশ্লাভ কোভলেভ পঞ্চম, ভারতের গ্র্যান্ড মাস্টার শ্যাম সুন্দর ষষ্ঠ ও ইরানের গ্র্যান্ড মাস্টার মাকসুদলো পারহাম সপ্তম হন। 

 

চ্যাম্পিয়ন গ্র্যান্ড মাস্টার লি ডি দুই হাজার মার্কিন ডলার, রানার-আপ গ্র্যান্ড মাস্টার অভিমান্যু পৌরনিক পনেরো শত ডলার, তৃতীয় গ্র্যান্ড মাস্টার কার্তিক ভেঙ্কাটারামান এক হাজার মার্কিন ডলার। 

 

 

এরকম বড় মাপের টুর্নামেন্ট আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেখ কামালের নাম বিশ্ব দর্বারে পৌছে দেওয়া সম্ভব বলে মনে করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল (এমপি)।

তিনি বলেন, শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের অবদানকে সাড়া বিশ্বের কাছে পৌছে দেওয়া জন্য, সাড়া বিশ্বের কাছে তাকে পরিচিত করার জন্য এতো বড় আয়োজন দাবা ফেডারেশন করেছেন ২১জন গ্রান্ডমাষ্টার, ১৩জন আন্তর্জাতিক মাষ্টারসহ ১৫টি দেশের মোট ৮০জন খেলোয়ারদের নিয়ে এই ক্রাইসি মুহুর্ত্তে অনলাইন আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট হয়েছে, বর্তমান সময়ের জন্য এটি একটি অনেক বড় অর্জন বা বিষয়। উক্ত আয়োজনের জন্য বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনকে আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানান। 

তিনি বলেন, আমি মনে করি এই আয়োজনের ফলে শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের অবদান সাড়া বিশ্বের কাছে পৌছে যাবে। পাশাপাশি আমাদের দেশের দাবা খেলাটি দেশের মানুষের কাছে আরো বেশী জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাবে। তিনি আরো বলেন, শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল মুক্তিযুদ্ধে, ক্রীড়ায় ও সংস্কৃতিতে মৃত্যুঞ্জয়ী হয়ে আছে এবং থাকবেন।

 

 

দাবা নিয়ে আরো বেশী আশার কথা শুনিয়েছেন, পুলিশের মহা পরিদর্শক এবং বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সভাপতি ডঃ বেনজির আহম্মেদ। 

তিনি বলেন, দাবাতে এখন যে পরিমানে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। যদি এই গুরুত্ব এবং আমাদের কর্মকান্ড ধারাবাহিক ভাবে করতে পারি। তাহলে আমাদের রিজনে আমরা অন্যতম একটি শক্তিশালী এবং সফল দেশ হিসেবে আবির্ভূত হতে পারবো। এবং আমি বিশ্বাস করি সেই সম্ভাবনা আমাদের দেশের খেলোয়ারদের মধ্যে রয়েছে। এবং আমরাই প্রথম বাংলাদেশের ইতিহাসে মহিলা একক দাবা লিগ চালু করেছি। 

আমরা ইতিমধ্যে পৃষ্ঠপোষকতার ব্যবস্থা করে ফেলেছি, যা শুধুমাত্র দাবার জন্যই। বর্তমান সময় পেরিয়ে যখন স্কুল-কলেজগুলো খুলবে তখনই আমরা স্কুলগুলোতে ‘স্কুল দাবা’ শুরু করবো। যদি আমরা স্কুল দাবা শুরু করতে পারি, তাহলে সেখান থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে সাফল্যে ফলাফল পাওয়া যাবে। 

তিনি আরো বলেন, আগামী সেপ্টেম্বর মাসেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নামে আরেকটি আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এবং অক্টোবর মাসে শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে আরেকটি আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের আয়োজন সম্ভাবনা আছে। 

 

এই বিষয়ে পৃষ্ঠপোষক সাইফ পাওয়াটেকের মহাপরিচালক তরফদার রুহুল আমিন বলেন, বাংলাদেশ ক্রিড়াঙ্গনে সর্ব সময় সহযোগীতার জন্য সাইফ পাওয়ারটেক পাশে থাকবে, বিশেষ করে দাবা খেলার জন্য। 

 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top