ঢাকা শনিবার, ৮ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯

ব্লাক আউটসহ নানা আয়োজনে জাতীয় গণহত্যা দিবস পালিত

ডেস্ক রিপোর্ট , | প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২১ ২২:১২; আপডেট: ৮ অক্টোবর ২০২২ ০১:৪৮

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কাল রাত স্মরণে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের সামনে মোমবাতি প্রজ্বালন
 
দেশজুড়ে নানা আয়োজনে জাতীয় গণহত্যা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে দিনে শহীদদের স্মরণে আলোচনাসভা, শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা, দেশ ও জাতির শান্তি ও অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। সন্ধ্যা ও রাতে মোমবাতি প্রজ্বালনসহ নানা ধরনের কর্মসূচি পালন করে সব জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, রাজনৈতিক সংগঠন ও সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে হাজারো মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র নায়ার কবীর, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকারসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

এসময় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিসহ সকল শ্রেণিপেশার সাধারণ মানুষের কণ্ঠে একটি দাবি ছিল ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ গণহত্যাটি যেন আন্তজার্তিকভাবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কাল রাতে মোমবাতি প্রজ্বালন

গণহত্যা দিবস উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া তিতাস আবৃত্তি সংঠনের পরিচালক মনির হোসেন জানান, পৃথিবীর ইতিহাসে এমন বর্বর হত্যাকাণ্ড আর কোথাও সংঘটিত হয়নি। আজকের এই গণহত্যা দিবসের রাতে আমরা শহীদদের শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করছি। এই নারকীয় হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে জাতিসংঘ যেন দ্রুত সময়ের মধ্যে স্বীকৃতি প্রদান করেন সেই দাবি জানাচ্ছি।

রাজশাহীতে শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্বালন

রাজশাহী প্রতিনিধি জানান, রাজশাহীতে নানা আয়োজনে গণহত্যা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শহীদদের স্মরণে রাজশাহী সিটি করপোরেশন, রাজশাহী জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, রাজনৈতিক সংগঠন ও সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান পৃথক কর্মসূচি পালন করে। দিবসটি উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্বালন, শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা, দেশ ও জাতির শান্তি ও অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) সকাল ১১টায় রাজশাহী শিশু একাডেমি ও জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক রচনা, চিত্রাঙ্কন, দেশাত্মবোধক সংগীত ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দুপুর ১২টায় শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকাসমূহে গণহত্যার ওপর আলোকচিত্র ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। নগরীর প্রতিটি মসজিদে বাদ যোহর ও অন্যান্য উপাসনালয়ে ২৫ মার্চ রাতে নিহতদের স্মরণে বিশেষ মোনাজাত ও প্রার্থনা করা হয়। রাসিকের আয়োজনে সন্ধ্যায় নগর ভবনের সামনে মোমবাতি প্রজ্বালন করে একটি র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

কালরাত্রি স্মরণে রাজশাহী নগরীর শহীদের বাড়িতে মোমবাতি প্রজ্বালন করা হয়। বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) সন্ধ্যায় এর আয়োজন করা হয়। এসময় শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্য এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয়।

নগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রাত সাড়ে ৭ টায় কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয় থেকে আলোর মিছিল বের হয়। মিছিলটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ভুবন মোহন পার্কের শহীদ বেদিতে গিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সেখানে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।
রাজশাহীর জরুরি সেবা স্থাপনা ব্যতিত অন্যান্য সরকারি ভবনে রাত ৯ টা থেকে ৯টা ১ মিনিট পর্যন্ত প্রতীকী ব্ল্যাক আউট পালন করা হয়েছে। এতে অংশ নেয় রাজশাহীর সকল স্তরের মানুষ। রাত নয়টার পর অন্ধকার হয়ে যায় রাজশাহী নগরী। এক মিনিট শেষ হলে ফিরে আসে আলো।

বরিশালে মোমবাতি জ্বেলে মানববন্ধন

বরিশাল প্রতিনিধি জানান, গণহত্যা দিবস উপলক্ষে বরিশালে প্রতীকী ‘ব্লাক আউট’ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় নগরীর সকল বৈদ্যুতিক লাইট বন্ধ করে দেওয়া হয়। ঠিক ১ মিনিট পর আবার লাইট জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। এই সময়ে নগরীর দক্ষিণ সদর রোডের সার্কিট হাউজের সামনে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মোমবাতি প্রজ্বালন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার সাইফুল হাসান বাদল ও জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দারসহ অন্যরা।

নরসিংদীতে কাল রাত স্মরণে আলোর মিছিল

নরসিংদী প্রতিনিধি জানান, ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস উপলক্ষে নরসিংদীতে শহীদদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেছে জেলার সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন। বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় শহরের বিলাসদী এলাকায় সার্কিট হাউজের সামনে থেকে সদর উপজেলা মোড়স্থ প্রেসক্লাব পর্যন্ত সড়কের উভয় পাশে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ মোমবাতি প্রজ্বালন করা হয়। এ সময় শহরের বিদ্যুৎ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশ নেয়, জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী, মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, জেলা শিল্পকলা একাডেমী, জেলা শিশু একাডেমি, সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সাংস্কৃতিক সংগঠন বাঁধনহারাসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের সদস্যরা। এসময় বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম।

শরীয়তপুরে মোমবাতি জ্বেলে শহীদ মিনারে অনুষ্ঠান

শরীয়তপুর সংবাদদাতা জানান, শরীয়তপুরে ২৫ মার্চ কাল রাতের বিভীষিকাময় গণহত্যাযজ্ঞ দিবসে আলোচনা সভা ও মোমবাতি প্রজ্বালন এবং ব্লাক আউটের মধ্য দিয়ে শহীদদের স্মরণ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন এসব কর্মসূচি পালন করে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় অংশ নেন শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, পুলিশ সুপার এস এম আশারফুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদার, সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র পারভেজ রহমান, সাবেক মেয়র রফিকুল ইসলাম কোতায়াল।

আলোচনা শেষে রাত ৯টা ২০ মিনিটে শরীয়তপুর শহীদ মিনারের বেদিতে মোমবাতি প্রজ্বালন করে শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করা হয়। এ সময় এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

এছাড়া রাত ৯টা থেকে ৯টা ১ মিনিট পযর্ন্ত ব্লাক আউট পালন করা হয়। এসময় জেলার সকল অফিস, আদালত, দোকান, বাড়িসহ সব স্থাপনায় এক মিনিট আলো বন্ধ রাখা হয়।

মুন্সীগঞ্জে জাতীয় গণহত্যা দিবসের আলোচনা সভা

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ঐতিহাসিক ২৫ মার্চ কাল রাত ও গণহত্যা দিবস উপলক্ষে জেলায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সরকারি হরগঙ্গা কলেজের ঐতিহাসিক জামতলা চত্বরে জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন বলেন, ২৫ মার্চের গণহত্যার সময় প্রথম বাংলাদেশ পুলিশ প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল। আধুনিক অস্ত্রের বিরুদ্ধে সাধারণ ৩০৩ রাইফেল নিয়ে তারা শত্রুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে। সে রাত্রে প্রায় ১১০০ পুলিশ সদস্য শহীদ হন।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেন, সেদিন যারা আত্মত্যাগ করেছেন তাদের কাছে আমাদের কিছু দায় আছে। তারা যে স্বপ্ন দেখেছিলেন যদি আমরা তা পূরণ করতে পারি তাহলে তাদের আত্মা শান্তি পাবে।
মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি বলেছেন, একাত্তরের গণহত্যাকারীদের কোনও ক্ষমা নেই। মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে বর্বর পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও তাদের দোসরা যেভাবে গণহত্যা চালিয়ে তার নজির বিশ্বে আর নেই। বাঙালির স্বাধীনতা ইতিহাস অপরিসীম আত্মত্যাগ এবং গণবীরত্বের ইতিহাস।

অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল হাই তালুকদারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন আব্দুল কালাম আজাদ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আনিস উজ্জামান আনিস, প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মেজর মোহাম্মদ শরীফ উজ্জামান, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সুবাস চন্দ্র হীরা, সরকারি হরগঙ্গা কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর নাসিমা আহমেদ প্রমুখ।

হিলিতে ঐতিহাসিক গণহত্যা দিবস নিয়ে আলোচনা সভা

হিলি প্রতিনিধি জানান, দিনাজপুরের হিলিতে স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে ২৫ শে মার্চ গণহত্যা দিবস পালিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে হাকিমপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় উপজেলা পরিষদের হলরুমে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর-এ আলমের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান হারুন উর রশীদ, ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার লিয়াকত আলী, কৃষি অফিসার ড. মমতাজ সুলতানা, ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রেজাসহ অনেকে।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top