ঢাকা বুধবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

বাংলাদেশের দাপুটে জয়ের দিনে, অস্ট্রেলিয়ার লজ্জার রেকর্ড

এম. এ রনী | প্রকাশিত: ৯ আগস্ট ২০২১ ১৭:৪২; আপডেট: ৯ আগস্ট ২০২১ ২০:৫৩

এ যেন এক অনন্য অর্জন। উড়তে থাকা অস্ট্রেলিয়াকে পতন ঘটালেন বাংলাদেশ। যা হয়তো অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ইতিহাসের বড় একটি দুঃস্বপ্ন বয়ে বেড়াবে অনেকদিন। বাংলাদেশকে ছোট করে, বাংলাদেশকে অবহেলা করা যেন একরকম নিয়মে পরিনত হয়ে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার জন্য।

সকল দাম্ভিকতা আর অহংকারের পত ঘটলো বাংলাদেশের মাটিতে। সিরিজের পঞ্চম এবং শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে সর্বনিম্ন রানে অল-আউট করে লজ্জার সাক্ষি হয়ে বাংলাদেশ ৬০রানের বিশাল জয় দিয়ে শেষ করলো অনেক আলোচনার সিরিজ। সিরিজ জয় আগেই নিশ্চিত হয়েছে। এবার শেষ ম্যাচে জয় দিয়ে সিরিজটি ৪-১ এর ব্যবাধনাটি আর বাড়লো।

 

 

সিরিজের শেষ ম্যাচে টসে জিতে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহামুদউল্লাহ প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্বান্ত নেন। প্রথমে ব্যাট করার সিদ্বান্ত যেন ভালোই প্রমান দিচ্ছিলো বাংলাদেশের দুই ওপেনার। নিয়মিত সৌম্যকে আজ নিচের দিকে নামিয়ে মেহেদীকে নাঈম শেখের ওপেনারের সঙ্গি করে নামায় বাংলাদেশ। ভাল খেলতে থাকা দুই ওপেনার ৪.২ বলে ৪২ রানের পার্টনারশীপ করে মেহেদী হাসান ব্যক্তিগত ১৩ রানে আউট হয়ে ফিরে যান।

 

 

অন্যদিকে নাঈম শেখও বেশী দূর যেতে পারেননি ব্যক্তিগত ২৩ রান এবং দলিয় ৫৭ রানে ফিরে যান। মাত্র তিন রান পরে ফিরে যান গত ম্যাচে খলনায়ক সাকিব।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে সৌম্য এবং মাহমুদউল্লাহ সাময়িক চাপ সামলিয়ে ভালোই যাচ্ছিল। কিন্তু দলীয় ৮৪ রানের সময় অধিনায়ক বিদায় নিলে নিয়মিত বিরতীতে উইকেট পড়তে থাকে।

শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২২ রানের পুঁজি গড়তে সক্ষম হয় বাংলাদেশ।

অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের প্রথমেই মাত্র ৩ রানের মাথায় গত ম্যাচের নায়ক ক্রিশ্চিয়ানকে সরাসরি বোল্ড আউট করে ফেরত পাঠান সিরিজে প্রথম থেকে ভালো বল করা নাসুম।

বরাবরের মতো বাংলাদেশের বোলারদের কাছে এই সিরিজে অসহায় বনে যাওয়া অস্টেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা এবারো ব্যর্থ। খুব দ্রুতই অস্ট্রেলিয়ার সব উইকেট হারাতে হয় ১৪.৩ বলে মাত্র ৬২ রানে।

এরই সাথে দীর্ঘ ১৬ বছর পর আবারো অস্ট্রেলিয়া লজ্জার ইতিহাস গড়ে। ২০০৫ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৭০রানই ছিল সর্বনিম্ন টি-টোয়েন্টিতে।

এবার সেই লজ্জার রেকর্ডটি অস্ট্রেলিয়ার সকল অহংকার আর দাম্ভিকের পতণ ঘটিয়ে বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়াকে ৬২ রানে অল-আউট করে দিয়ে অস্ট্রেলিয়া সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড এ যুক্ত হলো, যা দীর্ঘদিন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ইতিহাসে দুঃস্বপ্ন হয়ে থেকে যাবে।

অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসে সর্বোচ্চ ম্যাথু ওয়েড করেন ২২ রান। দলের আর কেহই দুই অংকে ছুতেই পারে নি। বাংলাদেশের পক্ষে সাকিব চার উইকেট, তিনটি সাইফুদ্দিন, নাসুম ২টি এবং মাহমুদউল্লাহ ১টি উইকেট নেন।

ম্যাচ সেরা হন সাইফুদ্দিন এবং সিরিজ সেরা সাকিব আল হাসান।

এবারের এই সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার যত সব আবদার ছিল তা ছিল অনেকাংশে হাস্যকর এবং অহংকারী মনোভাবে বহিঃপ্রকাশ। তারই জবাবটি যেন বাংলাদেশে ভালো ভাবেই দিলো।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top