ঢাকা শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮

অনুমোদন পেলে টিকা অনেক আগেই চলে আসতো: চীনের রাষ্ট্রদূত

ডেস্ক রিপোর্ট | প্রকাশিত: ১০ মে ২০২১ ২৩:১৪; আপডেট: ১৯ জুন ২০২১ ০৮:১৬

রাষ্ট্রদূত লি জিমিং

চীন গত ৩ ফেব্রুয়ারি উপহার হিসেবে করোনার টিকা দেওয়ার প্রস্তাব করেছিল,  কিন্তু তিন মাস পর এর অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ। সরকার এই অনুমোদন আরও  আগে দিলে অনেক আগেই টিকা বাংলাদেশে চলে আসতো বলে জানিয়েছেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

সোমবার (১০ মে) ডিপ্লোমেটিক করেসপনডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ- ডিক্যাব আয়োজিত ‘ডিক্যাব টকে’ তিনি এ কথা বলেন।

উপহারের পাঁচ লাখ টিকা আগামী ১২ মে ঢাকায় পৌঁছাবে জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘দুই সরকারের মধ্যে বাণিজ্যিকভাবে টিকা কেনার বিষয়ে আলোচনা চলছে।’

রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেন, ‘বাংলাদেশের কাছ থেকে সিনোফার্মের টিকার অনুমোদন গত সপ্তাহে পাওয়া গেছে। কিন্তু দুঃখজনক হচ্ছে— ওই কোম্পানির কাছ থেকে অনেকেই  আগে থেকে টিকা  কিনেছে বলে তিনি জানান। এর ফলে বাংলাদেশ লাইনের পেছনের দিকে রয়েছে। এ বছরের দ্বিতীয়ার্ধে হয়তো টিকা পাওয়া যেতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘আমি আমার সরকারকে বলেছি, এই মুহূর্তে টিকা সরবরাহের জন্য এবং আশা করি, এ বছরের দ্বিতীয়ার্ধে টিকা সরবরাহ করা যাবে।’

যৌথ উৎপাদনের বিষয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘চীনের দুটি কোম্পানি এ বিষয়ে আলোচনা করেছে। কিন্তু দুঃখজনক হচ্ছে, এ বিষয়ে বাংলাদেশ পিছিয়ে আছে। এখানে অনেক কোম্পানি আছে, যারা আগ্রহী। কিন্তু তাদের ফ্যাক্টরি বা ল্যাবরেটরি নেই এবং এটি করতে অনেক সময় নেবে। তবে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের এই সুবিধা আছে। তাদের সঙ্গে আলোচনা ফলপ্রসূ হলে যৌথভাবে উৎপাদন হবে।’

চীনের টিকার কার্যকারিতা ৭৯ শতাংশ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর অনেক দেশ চীনের টিকা ব্যবহার করছে।’




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top