বিএনপি নেতার বাসায় এস কে সিনহা
প্রচ্ছদ » টপ লিড (ডান) » বিএনপি নেতার বাসায় এস কে সিনহা


শনিবার ● ২১ অক্টোবর ২০১৭

---
ছুটি নিয়ে অস্ট্রেলিয়া গেলেও প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা এখনো থামেনি। এবার তাকে ঘিরে নতুন আলোচনা জাপান সফরকালে বিএনপি নেতা শাহীন চৌধুরীর আতিথেয়তা গ্রহণ এবং একান্ত বৈঠকের বিষয়টি বেশ গুরুত্ব পাচ্ছে।

শুধু আতিথেয়তাই নয়, প্রধান বিচারপতি ওই বিএনপি নেতার সঙ্গে ঘুরে বেড়িয়েছেন বলেও তথ্য এসেছে। স্ত্রীসহ প্রধান বিচারপতি জাপানে শাহীন চৌধুরীর বাসভবনে যে নৈশভোজে অংশ নিয়েছিলেন, তার ছবিও এসেছে। এ নিয়ে ক্ষমতাসীন দলে নানা প্রশ্নের উদ্রেক হয়েছে।

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের সমালোচনার মুখে থাকা সুরেন্দ্র কুমার সিনহা ছুটি নিয়ে গত ১৩ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়া যান। তবে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আগে তিনি রীতিমতো বোমা ফাটিয়ে যান।

দেশ ত্যাগের আগে সিনহা বলে যান, সরকারের আচরণে বিব্রত হয়ে অসুস্থ না হয়েও তিনি ছুটি নিয়েছেন। তিনি এও বলেন, প্রধান বিচারপতির প্রশাসনে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি কিংবা সরকারের হস্তক্ষেপ করার কোনো রেওয়াজ নেই। তিনি শুধু রুটিনমাফিক দৈনন্দিন কাজ করবেন। এটিই হয়ে আসছে।

তিনি আরও বলেন, প্রধান বিচারপতির প্রশাসনে হস্তক্ষেপ করলে এটি সহজেই অনুমেয় যে, সরকার উচ্চ আদালতে হস্তক্ষেপ করছে এবং এর দ্বারা বিচার বিভাগ ও সরকারের মধ্যে সম্পর্কের আরও অবনতি হবে। তার এ বক্তব্যের প্রেক্ষাপটে পরের দিন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের পাঁচ বিচারপতি গণমাধ্যমে একটি বিবৃতি পাঠান। বিবৃতিতে তারা প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার সঙ্গে একই বেঞ্চে আর বসতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

গত মাসে এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রধান বিচারপতিদের সম্মেলনে যোগ দিতে সুরেন্দ্র কুমার সিনহা জাপান যান। গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জাপানের টোকিওতে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে যোগদানের অনুরোধ জানিয়ে সিনহাকে চিঠি দিয়েছিলেন জাপানের প্রধান বিচারপতি। সেই অনুরোধে সাড়া দিয়ে ‘কনফারেন্স অব চিফ জাস্টিস অব এশিয়া অ্যান্ড দ্য প্যাসিফিক’ শীর্ষক এই সম্মেলন যোগ দেন বিচারপতি এসকে সিনহা।

এদিকে এই সম্মেলনে যোগদানের আগে প্রধান বিচারপতি কানাডায় যান। গত ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর তিনি সেখানে অবস্থান করেন। পরে জাপান সফরে যান। প্রধান বিচারপতির সঙ্গে ছিলেন তার স্ত্রী সুষমা সিনহা ও সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার মো. জাকির হোসেন।

জাপান সফরে এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রধান বিচারপতিদের এই সম্মেলনে যোগদান ছাড়াও সেখানে বেশ কিছু অনুষ্ঠানে অংশ নেন প্রধান বিচারপতি। জাপানের বাংলাদেশি ব্যবসায়ী ফোরামের আয়োজনে নৈশভোজেও অংশ নেন। তবে সব থেকে বেশি আলোচনায় এসেছে জাপান বিএনপির একাংশের সহসভাপতি শাহীন চৌধুরীর বাসায় নৈশভোজে অংশগ্রহণ।

এ সময় শাহীন চৌধুরীর সঙ্গে সিনহার দেশের সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও আলোচনা হয় বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। তা ছাড়া শাহীন চৌধুরীর টেলিফোনে প্রধান বিচারপতি দেশে এবং বিদেশে অবস্থানরত অনেক বিএনপি নেতার সঙ্গেও যোগাযোগ করেছেন বলে জানা গেছে।

বিএনপি নেতা শাহীন চৌধুরীর বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়। তবে তিনি ছোটবেলা থেকেই কুমিল্লায় বড় হয়েছেন। তিনি জাপানে রিকন্ডিশন গাড়ির ব্যবসা করেন। ঢাকার বনানীতেও তার রিকন্ডিশন গাড়ির শো-রুম আছে।

তবে অনেক চেষ্টা করেও শাহীন চৌধুরীর বাসায় নৈশভোজ এবং বৈঠকের বিষয়ে প্রধান বিচারপতির বক্তব্য পাওয়া যায়নি। বক্তব্য পাওয়া যায়নি বিএনপি নেতা শাহীন চৌধুরীরও।

বাংলাদেশ সময়: ১৮:৫৩:৫৩ ● ৩০৭ বার পঠিত



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আরো পড়ুন...