বিজিএমইএ ভবন ভাঙতে এক বছর সময় চায় সংগঠনটি
প্রচ্ছদ » রাজধানী » বিজিএমইএ ভবন ভাঙতে এক বছর সময় চায় সংগঠনটি


শনিবার ● ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭

---
নিজস্ব প্রতিবেদক :
রাজধানী হাতিরঝিলের সোনারগাঁও হোটেলের পূর্ব পাশে অবস্থিত বাংলাদেশ পোশাকশিল্প প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) ১৬তলা ভবন ভাঙতে আরও এক বছর সময় চায় সংগঠনটি।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিজিএমইএ ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সুপ্রিমকোর্ট ছয় মাস সময় দিয়ে আগামী ১১ সেপ্টম্বরের মধ্যে বিজিএমইএর বর্তমান ভবন ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন। তবে নতুন ভবন সম্পন্ন হতে আরও এক বছর সময় লাগবে। তাই আদালতের কাছে আমরা আরও এক বছর সময় চেয়েছি।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, পোশাকশিল্প দেশের সবচেয়ে বড় রফতানি খাত। আর এ শিল্পের মূখপাত্র সংগঠন হচ্ছে বিজিএমইএ। সংগঠনটি ৩২০০ কারখানা ও ৪৪ লাখ শ্রমিকের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো নিয়ে একনিষ্ঠভাবে কাজ করে। গুরুত্বপূর্ণ এ সংগঠনের সব দাফতরিক কাজ হয় বিজিএমইএ ভবনে। বিজিএমইএ বেসরকারি খাতের সংগঠন হলেও অনেক সরকারি কাজ করতে হয়। সদস্যভুক্ত প্রতিষ্ঠানের ইউডি, ইউপি, সি/ও এবং মেশিনারিজ আমদানির প্রত্যয়নপত্র বিজিএমইএর দফতর থেকে দেয়া হয়।

বিজিএমইএ সভাপতি জানান, রাজধানী উত্তরা ৩য় প্রকল্পে ১৭ নম্বর সেক্টরের বিজিএমইএ ভবন নির্মাণে ৫ বিঘা জমির বরাদ্দ দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার জায়গায় টাকা পরিশোধ করেছি। ভবন নির্মাণে কনসালটেন্ট নিয়োগ দিয়েছি। আশা করছি এক বছরের মধ্যে ভবন নির্মাণ সম্পূর্ণ হবে।

জমির মালিকানা না থাকা ও জলাধার আইন লঙ্ঘন করে হাতিরঝিলে বিজিএমইএ ভবন নির্মাণ করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০১১ সালের ৩ এপ্রিল ভবনটি ভেঙে ফেলার রায় দেয় হাইকোর্ট। ২০১৩ সালের ১৯ মার্চ ৬৯ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। এরপর ওই বছর ২১ মে বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষ আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন করে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬:৪৫:৫৫ ● ৫৭ বার পঠিত



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আরো পড়ুন...